ওয়েব সাইটে টার্গেটেড ট্রাফিক বৃদ্ধি করার ৫টি সহজ উপায়।

This image about "Targeted Traffic"

সকল ওয়েব সাইটের  মালিকরা সচরাচর একটি সমস্যা ফেস করে থাকেন। আর সেটি হলো ওয়েব সাইটে কাংখিত  ট্রাফিক না থাকা।  ওয়েব সাইটে এই সীমিত ট্রাফিকের সমস্যা নিয়ে সকল সাইটের  মালিকেরা নিয়মিত নতুন নতুন পদ্ধতি অবলম্বন করে যাচ্ছেন। তবুও সাইটে কাংখিত ট্রাফিক পাচ্ছেন না। আর এই কাংখিত ট্রাফিক না থাকার কারণে পর্যাপ্ত পরিমাণে উপার্জন ও করতে পারছেন না।


নিজের সাইটের দিকে তাকিয়ে দেখুন, হয়তোবা আপনিও এরকম সমস্যায় ভুগছেন। আপনার সাইট আছে কিন্তু সে সাইটে পর্যাপ্ত ভিজিটর নেই।  বিষয়টা অনেকটা এরকম যে, আপনি এক গাড়ির ড্রাইভার আর আপনিই  সেই গাড়ির যাত্রী,  বিষয়টা খারাপ লাগলেও এটাই সত্য।



এবার মূল আলোচনায় ফিরে আসি।

এতক্ষণ আমরা সমস্যা সম্পর্কে জানতে পারলাম, কিন্তু এর সমাধান কি?

আমি এখন আপনাদের সামনে এমন কিছু কার্যকরী পদ্ধতি নিয়ে আলোচনা করব। যার মাধ্যমে আপনারা আপনাদের ব্লগে বা ওয়েব সাইটে টার্গেটেড ট্রাফিক নিয়ে আসতে পারবেন  ইনশা-আল্লাহ!  তবে আপনার সাইটের টার্গেটেড ট্রাফিক আনার প্রথম শর্ত হল ধৈর্য। কেননা ধৈর্য ছাড়া এসব কাজ ভালো ভাবে সম্পন্ন করা সম্ভব নয়। তবে এমন কিছু উপায় আছে যেগুলি আপনাকে খুব দ্রুত ভাল ফলাফল দিতে পারবে।


ওয়েবসাইটের ট্রাফিক বাড়ানোর জন্য ৫টি কার্যকারী উপায়।

এখন আমরা ওয়েব সাইটের ট্রাফিক বাড়ানোর জন্য পাঁচটি কার্যকারী উপায় নিয়ে আলোচনা করব। যেগুলো সত্যিকার অর্থে আপনাদের চাহিদা পূরণ করতে সক্ষম হবে। অর্থাৎ, আপনার সাইটে পর্যাপ্ত ভিজিটর আনতে সহযোগিতা করবে।


১. লং-টেইল কী-ওয়ার্ড গুলোর দিকে বেশি লক্ষ দেওয়া।

শুধু একটি শব্দের কিওয়ার্ড নিয়ে কাজ করে সাইটকে র‌্যাংকে আনার সময় এখন আর নেই। কেননা, এখন একই কী-ওয়ার্ড হাজার হাজার সাইট ব্যবহার করছে। তাই লক্ষ্যে পৌঁছাতে হলে আপনাকে অবশ্যই লং-টেইল কীওয়ার্ড ব্যবহার করতে হবে। 


যেমন: আপনি “HP LaserJet Pro” বিক্রি করবেন। আপনার কোন একজন টার্গেটেড কাস্টমার শুধু “HP”  লিখে সার্চ করে। তাহলে, আপনার সাইট খুঁজে পাওয়ার সম্ভাবনা অনেক কম। কিন্তু সে যদি গুগোল এ গিয়ে এভাবে (HP LaserJet Pro) সার্চ করতো তাহলে আপনার সাইট খুজে পাওয়ার সম্ভাবনা থাকত অনেক বেশি।


এখানে আপনাদের মনে একটা প্রশ্ন আসাই স্বাভাবিক। আর সেটা হল হয়তো  “HP” লিখে প্রতিমাসে 1000000  জন মানুষ সার্চ করে। অপরপক্ষে “HP LaserJet Pro” লিখে প্রতিমাসে 100 জন মানুষ সার্চ করে। তাহলে, আমি কেন এত বড় সংখ্যক ট্রাফিক বাদ দিয়ে মাত্র 100 জন ট্রাফিকে টার্গেট করতে যাবো? যদি এমনটা ভাবেন তাহলে খুব বড় ভুল করবেন। কেননা ওই 100 জনই হলো আপনার কাংখিত ট্রাফিক। এদেরকে সাইটে আনতে পারলে অবশ্যই আপনার চাহিদা অনুযায়ী প্রোডাক্ট সেল হবে।


২. আকর্ষণীয় টাইটেল ব্যবহার করতে হবে।

সুন্দর এবং আকর্ষণীয় টাইটেল ব্যবহার করা একান্ত জরুরি। কেননা, একটি ভালো টাইটেল আপনাকে চাহিদার থেকেও বেশি ভিজিটর এনে দিতে পারে। এর কারণ হলো, আমরা নিজেরাই যখন গুগোল এ কোন কিছু সার্চ করি। তখন সার্চ রেজাল্টের টাইটেল বা শিরোনাম এর দিকে লক্ষ্য করেই কিন্তু পেজে ভিজিট করে থাকি।


কোনটা ভাল টাইটেল তা কিভাবে বুঝবেন?

  1.  ভালো টাইটেলের কীওয়ার্ডটি ফোকাস হবে।
  2.  কিওয়ার্ড টি অবশ্যই অর্থবহ হবে।
  3.  টাইটেল এর মধ্যে সংখ্যা ব্যবহার করা যেতে পারে, যা ভিজিটরকে আকর্ষণ করবে।

নিচে আমি গুগলে সার্চ করেছি “Best Laptop” এই কী-ওয়ার্ড টি দিয়ে। আর আমার সার্চ রেজাল্টের কিছু অংশ নিচে দেওয়া হল-

উক্ত ছবিতে লাল দাগ দিয়ে চিহ্নিত করা শব্দগুলি হল “পাওয়ার ওয়ার্ড”। যা একজন ভিজিটরকে ওই পেজে ভিজিট করতে আগ্রহী করে তুলবে।  আশাকরি আকর্ষণীয় টাইটেল নিয়ে সকলের কনসেপ্টটা ক্লিয়ার হয়েছে।



৩. সঠিক ইন্টারনাল লিংক স্থাপন।

আপনার সকল পোষ্ট সার্চ ইঞ্জিনে র‌্যাংক নাও করাতে পারে। এবং সেই পোস্ট গুলো সবার কাছে জনপ্রিয় নাও হতে পারে। তাহলে সেই পোস্ট গুলোতে কিভাবে ভিজিটর বৃদ্ধি করবেন???

উত্তরটি এখানেই আছে, সেই পোস্ট গুলোতে ভিজিটর বাড়াতে চাইলে আপনাকে ইন্টারনাল লিংক করাতে হবে। যে পোস্টগুলি গুগলে ভালো র‌্যাংক করেছে এবং যেগুলোতে নিয়মিত অনেক ভিজিটর প্রবেশ করে। ওইসব পোস্ট গুলিতে কম জনপ্রিয় পোস্টগুলি ইন্টারনাল লিংক করান, ফলে জনপ্রিয় পোস্ট গুলোর মাধ্যমে কম জনপ্রিয় পোস্ট গুলোতে ভিজিটর প্রবেশ করবে।  এভাবে আপনারা উক্ত পেজ এর ট্রাফিক বাড়াতে পারেন।

এছাড়াও উইকিপিডিয়া এর দিকে লক্ষ্য করলে দেখতে পাবেন যে, তাদের প্রতিটি পেজ অনেক ভালভাবে ইন্টারনাল লিঙ্ক করা আছে। ফলেই উইকিপিডিয়া এত র‌্যাংক করতে পেরেছে।


৪. ফেসবুকে (Niche) নিস ভিত্তিক গ্রুপ/ পেজ তৈরি।

বর্তমানে সারা বিশ্বে ছোট-বড় নারী-পুরুষ সকলেই সোশ্যাল মিডিয়াতে সময় দিতে অনেক বেশি পছন্দ  করেন। তাই যদি আপনি আপনার নির্দিষ্ট নিস ভিত্তিক কোন গ্রুপ তৈরি করে থাকেন। তাহলে, সেখান থেকে সোশ্যাল মিডিয়ার অনেক ভিজিটরদের সহজেই পেয়ে যাবেন। এতে আপনার সাইটের উপার্জন বাড়বে।


তবে অবশ্যই মনে রাখতে হবে যে, গ্রুপে শুধু আপনার সাইটের প্রমোশনাল পোস্ট দিলেই হবে না। গ্রুপের মেম্বারদের বিনোদন দেয়ার জন্য সোশ্যাল মিডিয়ার অনেক বিনোদন মূলক পোস্ট আপনাকে দিতে হবে। এবং মেম্বারদের চাহিদাকে প্রাধান্য দিতে হবে।


৫.ইউজার ফ্রেন্ডলি ওয়েবসাইট ইন্টারফেস।

আপনার সাইটটিকে এমন ভাবে বানাতে হবে। যাতে কোন ইউজার সাইটে ঢুকলে সহজের সাইটের সবকিছু বুঝতে পারেন। অর্থাৎ, কোন ব্যবহারকারী যেন আপনার সাইট এর কোন পেজ ব্যবহার করতে কোন সমস্যার সম্মুখীন না হন।


যেন , আপনার সাইটে কোন ভিজিটর প্রবেশ করলে যেন সে নিরাপদ এবং স্বাচ্ছন্দ্য-বোধ মনে করতে পারে। এজন্য আপনার সাইটে প্রয়োজন-

  1.  সুন্দর মেনুবার।
  2.  প্রয়োজন মতো রাইট সাইটবার।
  3.  গোছানো হেডার এবং ফুটার ব্যবহার করা ইত্যাদি।

আপনি যদি আপনার সাইটটিকে এভাবে গুছিয়ে সুন্দর ভাবে কাজ করতে পারেন । তাহলে, অবশ্যই আপনি আপনার টার্গেটেড কাস্টমারদের সহজেই পেয়ে যাবেন। এবং খুব তাড়াতাড়ি আপনার সাইটের ভিজিটর এর সংখ্যাও বেড়ে যাবে।



লেখাটি ভাল লাগলে অবশ্যই পোস্টটি শেয়ার করে আপনার নতুন বন্ধুদের জানার সুযোগ করে দিন । গুগোল অ্যাডসেন্স সম্পর্কিত সকল পোস্ট দেখতে এখানে ক্লিক করুন। আমাদের সাথে থাকার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ!

1 thought on “ওয়েব সাইটে টার্গেটেড ট্রাফিক বৃদ্ধি করার ৫টি সহজ উপায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *